• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
এড. আমজাদ হোসেন কখনও অর্থবিত্তের জন্য রাজনীতি করেননি-এড.ফরিদুল ইসলাম এড.আমজাদ হোসেনের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী সফলের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন পূর্ব বড় ভেওলা মাহমুদিয়া হেফজখানা ও এতিমখানায় সাহায্যের আবেদন চকরিয়ায় দখলবাজরা কেটে নিল সামাজিক বনায়নের শতাধিক গাছ মানবিক সাহায্যের আবেদন জাফর আলম এমপি ও জাহেদুল ইসলাম লিটু কে বিশাল সংবর্ধনা আধুনিক ও বাসযোগ্য চকরিয়া পৌরসভা রূপান্তরে কাজ করবো-মেয়র প্রার্থী এড. ফয়সাল চকরিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতিকে নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ চকরিয়া বিএমচর ইউপি কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুর, চেয়ারম্যানসহ আহত ৪ চকরিয়া কোনাখালীতে পৈতৃক ভিটা জবর দখলে নিতে সন্ত্রাসী হামলা

আলহাজ্ব জান্নাতুল ফেরদৌস সিংড়া পৌরসভার একজন মানবিক মেয়র

রাজু আহমেদ, সিংড়া / ৮২ সময় দেখুন
আপডেট : শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

দেশে করোনা মহামারীর শুরু থেকে আজ পর্যন্ত নিজে দিন-রাত এক করে নাগরিকদের জন্য খেটে চলেছেন নাটোরের সিংড়া পৌরসভার মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস।

রাস্তায় ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্ব পালন করতে তাকে দেখা গেছে করোনা সংকটের আগেও। ২০১৭ সালের অকালবন্যায় বুক সমান পানি অতিক্রম করে পৌরবাসীর কাছে পৌছে দিয়েছেন খাদ্য সহায়তা। আর করোনা সংকটের শুরু থেকে সিংড়াবাসীকে ঘরে রাখতে হাতজোড় করা থেকে শুরু করে পা চেপেও ধরতে দেখা গেছে তাকে। এরই মাঝে চলনবিলে বোরো ধান পাকা শুরু হলে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে একবেলা করে কাস্তে হাতে ধানও কাটছেন এই মেয়র। বৈশ্বিক এই দুর্যোগে নাটোর জেলার একজন মানবিক জনপ্রতিনিধি হিসেবে এভাবেই আত্নপ্রকাশ ঘটেছে মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌসের।

শুরু তো যখন, তখন দেখেছি সকালে ঘুম থেকে উঠার পর মেয়র ফেরদৌসের কাজ হলো দলীয় নেতাকর্মীদের ধান কাটার জন্য একত্রিত করা। রোজার এক সপ্তাহ আগে থেকে একবেলা করে প্রান্তিক চাষীর ধান কাটেন মেয়র। দুপুরের পর অল্পসময়ের জন্য নিজ কার্যালয়ে দাপ্তরিক কাজ সম্পন্ন করেন তিনি। সন্ধ্যার পর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ত্রাণ হিসেবে চাল, ডাল, তেলসহ অনান্য সামগ্রী ক্রয়, তদারক ও ত্রাণের প্যাকেট প্রস্তত কার্যক্রম নিজে উপস্থিত থেকে তদারকি করেন।

গত ২৯ এপ্রিল নাটোরের সিংড়া উপজেলায় প্রথম ৫ জন করোনা পজেটিভ রোগী ধরা পড়ে। পরের দিন লকডাউন ঘোষনা করে উপজেলা প্রশাসন। লকডাউনের পর দোকানপাট বন্ধ হয়ে পড়ে। সীমিত হয়ে পড়ে মানুষের জীবনযাত্রা। পৌর এলাকায় খাদ্যের অভাব যেনো কোনো ঘরে না থাকে সে লক্ষে মেয়র ফেরদৌস চালু করেন হটলাইন। মধ্যবিত্ত পরিবার, যারা খাবার চাইতে পারে না, তাদের খাবার পৌছে দেয় হটলাইন সার্ভিস। দিনে যেসব কল আসে রাতে তাদের কাছে পৌছে দেয়া হচ্ছে খাদ্য সামগ্রী। এশা ও তারাবি নামাজ শেষে স্বেচ্ছাসেবক টিম নিয়ে মেয়র বাড়ি বাড়ি পৌছে দেন খাদ্য সামগ্রী। লকডাউনের পর চলো পরিবহনের মাধ্যমে পৌর এলাকার শত শত পরিবারকে মেয়র নিজে গিয়ে খাবার পৌছে দেন। করোনার সময় নিজের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন থেকে সিংড়াবাসির সেবায় ৫৫ দিন ঘরের বাইরে কাটিয়েছেন তিনি। বাড়িতে স্ত্রী, পুত্র এবং কোলের শিশু সন্তানকে রেখে টানা ৫৫ দিন পৌরসভায় দিনরাত কাটিয়েছেন এমন মানবিক মেয়রের কথা কখনো শোনা যায় নি। সমালোচনার খাতিরে সমালোচনা করতে পারি কিন্তু সরকারী কোনো অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি তে তাঁকে দেখা যায় নি। ত্রান বিতরনে কোনো অনিয়ম তো দুরের কথা নিজে ত্রান তহবিলে অর্থ দিয়েছেন। পৌর এলাকার বিত্তবানদের সংযুক্ত করে মানুষের দ্বারে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেন। পৌর এলাকার ১২ টি ওয়ার্ডে তিনি মাননীয় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি মহোদয়ের পরামর্শে উন্নয়ন করেছেন।

শুধু তাই নয়, মহান মে দিবস উপলক্ষে চার শতাধিক কর্মহীন শ্রমিকের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন তিনি।

মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, ‘যেদিন থেকে মানুষকে সচেতন করার কাজে মাঠে নেমেছি, সেদিন থেকে নিজ ঘরে প্রবেশ করিনি। বাড়ির নীচতলায় একটি কক্ষে কোয়ারেন্টিনে থাকার মতো করে বাস করছি। স্ত্রীকে বলেছি ঘরের দরজার কাছে খাবার রেখে দিতে। তার রেখে যাওয়া খাবার খেয়ে প্লেট-গ্লাস আবারও দরজার কাছে রেখে দিই। প্রতিদিন এক-দুবার নিচে থেকেই স্ত্রী-সন্তানদের দেখি। স্ত্রী-সন্তানদের সুস্থ ও নিরাপদে রাখার জন্য তাদের কাছে আসতে দেই না।’

ফেরদৌস আরও বলেন, ‘সিংড়ার সংসদ সদস্য ও প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের নির্দেশে আমি দলীয় নেতাকর্মীদের সংগঠিত করে গরীব কৃষকদের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করছি। আগ্রহ নিয়েই তারা কাজ করছে। পৌর অডিটোরিয়ামে ত্রাণের কাজ করা হয়। আমাদের টেলি পরিবহন সার্ভিস ‘চলো’ দ্বারা পৌরবাসীর কাছে খাবার পৌছে দিচ্ছি। মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ এভাবে আসে না। তবে সিংড়াসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের এমনকি বিদেশেরও অনেক অবস্থাসম্পন্ন মানুষ এই দুর্যোগে আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাদের অর্থ সহায়তা গ্রহণ করেই আমরা ত্রাণের খাদ্য কিনছি।’

রাজু আহমেদ
২৬/০৯/২০


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category