• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
এড. আমজাদ হোসেন কখনও অর্থবিত্তের জন্য রাজনীতি করেননি-এড.ফরিদুল ইসলাম এড.আমজাদ হোসেনের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী সফলের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন পূর্ব বড় ভেওলা মাহমুদিয়া হেফজখানা ও এতিমখানায় সাহায্যের আবেদন চকরিয়ায় দখলবাজরা কেটে নিল সামাজিক বনায়নের শতাধিক গাছ মানবিক সাহায্যের আবেদন জাফর আলম এমপি ও জাহেদুল ইসলাম লিটু কে বিশাল সংবর্ধনা আধুনিক ও বাসযোগ্য চকরিয়া পৌরসভা রূপান্তরে কাজ করবো-মেয়র প্রার্থী এড. ফয়সাল চকরিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতিকে নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ চকরিয়া বিএমচর ইউপি কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুর, চেয়ারম্যানসহ আহত ৪ চকরিয়া কোনাখালীতে পৈতৃক ভিটা জবর দখলে নিতে সন্ত্রাসী হামলা

বরগুনার পাথরঘাটায় স্থানীয়দের উদ্যেগে সমুদ্র সৈকত নীলিমা পয়েন্টের স্বপ্ন

শেখ রাসেল, মোংলা / ২১৪ সময় দেখুন
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বাংলাদেশের দক্ষিণ অঞ্চল যার পরেই রয়েছে বঙ্গোপ সাগর সমুদ্র তীর ঘেঁষে উপকূলটি হচ্ছে বরগুনার পাথরঘাটা বাংলাদেশের দক্ষিণ অঞ্চলের সৌন্দর্য তুলে ধরার জন্য সমুদ্রের তীরেই পর্যাটন কেন্দ্র করার উদ্যেগ নিয়েছে স্থানীয়রা এরি মধ্যে কিছু নকশা ও ডিজাইন তৈরি করেছে পাথরঘাটার মানবতার ফেরিওয়ালা মেহেদী হাসান এটি নিয়ে তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও প্রচারণা চালাচ্ছেন তবে নাম পরিবর্তন নিয়েও অনেকের দ্বিমত থাকলেও তিনি সমুদ্র সৈকত এর নামের ব্যখ্যা দিয়েছেন তিনি তার ফেইসবুক স্টাটাসে
সেটি তুলে ধরা হলো :-

নীল আকাশের নিচে অথৈ পানিতে নীল রঙের মিশ্রণে নীল জলরাশির অপূর্ব দৃশ্য এটাই নীলিমা। দর্শনার্থীদের বিশাল সমাগম হওয়ায় স্পট টি কে পয়েন্ট এ আক্ষায়ীত করে নীলিমা পয়েন্ট নাম করন করা হয়েছে।

এই নীলিমা পয়েন্ট কোন ভাবেই মানুষের নামে নামকরণ করা হয়নি। যখন পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল তখন আপনারা কোথায় ছিলেন।

পাথরঘাটায় দর্শনীয় স্থান বেশ কতগুলো এর মধ্যে রয়েছে হরিণ ঘাটা পর্যটন কেন্দ্র, বিহঙ্গ দ্বীপ, নীলিমা পয়েন্ট, কালমেঘা সিভিস, পাশাপাশি পদ্মা ভাঙনের স্থানটি সৌন্দর্য মন্ডিত করে দর্শনীয় স্থানে রুপ দেয়া যায়।

নাম নিয়ে আপনাদের এতো মাথা ব্যথা কেন। পাথরঘাটা উপজেলার প্রতিটি স্পট নিয়েই একসাথে পাথরঘাটা পর্যটন কেন্দ্র। পাথরঘাটায় একসময় হাজার হাজার দর্শনার্থীরা বেড়াতে আসবে। হোটেল, মোটেল, দোকান পাট হবে। প্রতিটি স্পটে বিদ্যুৎ থাকবে, রাস্তা ঘাট হবে। দর্শনার্থীদের খরচ টাকাটা পাথরঘাটার ইনকাম হবে।

এখন কথা হলো আপনারা নাম নিয়ে টানাহেঁচড়া না করে দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা দেয়ার জন্য পুলিশ নয়, আমাদেরই পাথরঘাটা উপজেলা বাসীর প্রত্যেকটা মানুষের দিতে হবে। সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। আমরাই নিরাপত্তা নিশ্চিত করে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করবো।

তাই বেশি বেশি প্রচার করুন। সারা বিশ্বের মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে হবে।
সর্বোপরি আপনারা দূর দূরন্তে থেকে পাথরঘাটা উপজেলার আপনার জন্মস্থানে কি কি অবদান রেখেছেন। এটাই হলো মূক্ষ্য বিষয়।
আপনারা ফেসবুকে লিখে অন্যদের উৎসাহ বন্ধ না করে নিজের জন্মস্থানে অবদান রাখুন।।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category