• বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৮:২৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
এড. আমজাদ হোসেন কখনও অর্থবিত্তের জন্য রাজনীতি করেননি-এড.ফরিদুল ইসলাম এড.আমজাদ হোসেনের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী সফলের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন পূর্ব বড় ভেওলা মাহমুদিয়া হেফজখানা ও এতিমখানায় সাহায্যের আবেদন চকরিয়ায় দখলবাজরা কেটে নিল সামাজিক বনায়নের শতাধিক গাছ মানবিক সাহায্যের আবেদন জাফর আলম এমপি ও জাহেদুল ইসলাম লিটু কে বিশাল সংবর্ধনা আধুনিক ও বাসযোগ্য চকরিয়া পৌরসভা রূপান্তরে কাজ করবো-মেয়র প্রার্থী এড. ফয়সাল চকরিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতিকে নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ চকরিয়া বিএমচর ইউপি কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুর, চেয়ারম্যানসহ আহত ৪ চকরিয়া কোনাখালীতে পৈতৃক ভিটা জবর দখলে নিতে সন্ত্রাসী হামলা

আনোয়ারা উপজেলা প্রশাসনের মাছের সেডের ওপেন বিজ্ঞপ্তি, গোপনে ড্র

ফরহাদুল ইসলাম, আনোয়ারা প্রতিনিধি / ১৩৬ সময় দেখুন
আপডেট : বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আনোয়ারা উপজেলার চাতরী চৌমুহনী বাজারের অস্থায়ী মাছ বাজার সেড ভাড়ার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নির্ধারিত সময়ে ফরম বক্স না খুলে প্রকাশ্যে ড্র না দিয়ে গোপনে আর্থিক লেনদেন করে নির্দিষ্ট কয়েক জনকে দিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, গত ১ সেপ্টেম্বর উপজেলা নির্বাহী অফিসার, আনোয়ারা ফেইসবুক পেইজ থেকে উপজেলা প্রকৌশলী তাসলিমা জাহান স্বাক্ষরিত ” চাতরী চৌমুহনী বাজারে অস্থায়ী মাছ বাজার সেড ভাড়ার” একটি বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ ছিল, চাতরী চৌমুহনী বাজারে অস্থায়ী মাছ বাজার সেড ভাড়া প্রদানের নিমিত্তে আগ্রহী ব্যক্তির নিকট হইতে নির্ধারিত ফরমে সীল মোহরকৃত ফরমে আবেদন আহবান করা যাইতেছে। এবং ৩ সেপ্টেম্বর হতে ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অফিস চলাকালীন সময়ে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর দপ্তর হইতে নির্ধারিত মূল্যে (অফেরৎ যোগ্য) ক্রয় করা যাবে। আবেদন ফরম সমূহ ১৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১ ঘটিকা পর্যন্ত অত্র অফিসে রক্ষিত আবেদন বক্সে গ্রহন করা হইবে এবং ঐ দিন বেলা ৩ ঘটিকার সময় উপস্থিত কেউ থাকলে আবেদনকারীদের সম্মুখে ফরম বক্স খোলা হইবে।
বিজ্ঞপ্তিটি পাওয়ার পর স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তিনশত টাকা করে প্রায় ২৩৫টি ফরম ৭০ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে ক্রয় করেন। সেখানে এ ক্যাটাগরি সেডের জন্য ২৫ হাজার টাকা, বি ও সি ক্যাটাগরি সেডের জন্য ২০ হাজার টাকা এবং ডি ক্যাটাগরি সেডের জন্য ১০ হাজার টাকা পে-অর্ডার করে নিদিষ্ট বক্সে জমা দিলেও নিদিষ্ট সময়ে বক্স না খুলে প্রকাশ্যে ড্র না দিয়ে গোপনে আর্থিক লেনদেন করে নির্দিষ্ট কয়েক জনকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ীরা। বিষয়টি নিয়ে ব্যবসায়ীদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এবং উপজেলা প্রশাসনের এমন কর্মকান্ডে ব্যবসায়ীরা হতাশা প্রকাশ করেছে।

একাধিক ব্যবসায়ীরা জানান, উপজেলা প্রশাসনের এমন কর্মকান্ড করার ইচ্ছে থাকলে নিজেকে জাহির না করে তাদের পছন্দের ব্যক্তিদের দিয়ে দিলে কারো কোন আপত্তি থাকতো না। এমন কর্মকান্ডের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারক লিপি ও মানববন্ধন করা জরুরী বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা

তারা আরও জানান, উপজেলা প্রকৌশলী তাসলিমা জাহান দীর্ঘ বছরের পর বছর থাকার সুবাধে তিনি পছন্দ মতো করে অত্র প্রতিষ্ঠানের কাজ নিজ তালিকা মতো করে দিয়ে দেন। ফলে বঞ্চিত হচ্ছে প্রকৃত ব্যবসায়ীরা।

ফরম ক্রয়কারী মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মোহাম্মদ আনোয়ার জানান, নিয়ম অনুযায়ী ফরম নিয়েছি এবং আমাদেরকে বলা হয়েছিল ড্র যেদিন দেবে সেদিন ফোন করে জানিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তুু উপজেলা প্রশাসন নিজেদের ইচ্ছে মতো দিয়ে দেওয়ার পরও আমাদেরকে পে-অর্ডার নিয়ে যাওয়ার জন্যও বলা হয়নি। এটা খুবই দুঃখজনক।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা প্রকৌশলী তাসলিমা জাহান বলেন, ওখানে যারা মাছ ব্যবসায়ী আছে তাদেরকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে দেওয়া হয়েছে। বাকী গুলো ফরমে উল্লেখিত সময়ের দু-তিন পরে লটারি করে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

বিষয়টি চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক ইয়াসমিন পারভিন ছিদ্দিকী কে জানানো হলে তিনি বলেন, ফরমে যে সময়ে উল্লেখ ছিল সে সময়ে ফরম খোলা উচিত ছিল। বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন বলে জানান তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category