• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
এড. আমজাদ হোসেন কখনও অর্থবিত্তের জন্য রাজনীতি করেননি-এড.ফরিদুল ইসলাম এড.আমজাদ হোসেনের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী সফলের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন পূর্ব বড় ভেওলা মাহমুদিয়া হেফজখানা ও এতিমখানায় সাহায্যের আবেদন চকরিয়ায় দখলবাজরা কেটে নিল সামাজিক বনায়নের শতাধিক গাছ মানবিক সাহায্যের আবেদন জাফর আলম এমপি ও জাহেদুল ইসলাম লিটু কে বিশাল সংবর্ধনা আধুনিক ও বাসযোগ্য চকরিয়া পৌরসভা রূপান্তরে কাজ করবো-মেয়র প্রার্থী এড. ফয়সাল চকরিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতিকে নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ চকরিয়া বিএমচর ইউপি কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুর, চেয়ারম্যানসহ আহত ৪ চকরিয়া কোনাখালীতে পৈতৃক ভিটা জবর দখলে নিতে সন্ত্রাসী হামলা

পেকুয়ায় বসতবাড়ির উচ্ছেদ ঠেকাতে কোর্টে মামলা ও থানায় অভিযোগ

পেকুয়া প্রতিনিধি: / ২০৯ সময় দেখুন
আপডেট : শনিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২০

পেকুয়ায় বসতবাড়ি ও এর আশপাশের ১৮ শতক জায়গার জবর দখল ঠেকাতে আদালতে মামলা ও থানায় অভিযোগ পৌছানো হয়েছে। পেশী শক্তির আধিপত্য ও লাগামহীন হুমকি ঠেকাতে বসতবাড়ির মালিক কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি এমআর মামলা রুজু করে। বিচারিক আদালত সেটি আমলে নিয়েছে। ফৌজধারী কার্যবিধির ১৪৪ ধারা বলবৎ রাখতে বসতবাড়ির মালিক আদালতকে দৃষ্টি আকৃষ্ট করে। শান্তি শৃংখলা রক্ষাসহ বিরোধীয় জায়গায় কাউকে অনুপ্রবেশ না করার বারণসহ স্থিতিবস্থা বিদ্যমান রাখতে পুলিশকে নির্দেশ দেন আদালত। কাগজপত্র পর্যালোচনা ও সরেজমিন তদন্তসহ এর প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য সহকারী কমিশন ভূমি পেকুয়াকেও এর ন্যস্তভার অর্পণ করেন। এ দিকে বারবাকিয়া মৌজার বি,এস ৩০৮ নং খতিয়ান, বিএস দাগ ৯৭২৫ দাগাদির আন্দরে ১৮ শতক বসতভিটার জায়গা নিয়ে তুলকালাম অবস্থা বিরাজ করছে। একটি পেশীশক্তির বলয় তৈরী করে ভূমিদস্যু চক্র জায়গা দখলের পাঁয়তারায় লিপ্ত রয়েছে। ভোগদখলীয় পক্ষকে হটিয়ে একই জায়গায় জবর দখল প্রতিষ্টার জন্য ওই চক্র ভাড়াটে লোকজনসহ পেশীশক্তি নিয়ে মহড়াও দিচ্ছেন। এমনকি জায়গা থেকে বিতাড়িত হতে মূল মালিককে হাঁকাবকা ও হুমকি ধমকি দিচ্ছে। জমি না ছাড়লে প্রাণনাশের হুমকি, মামলা মোকদ্দমা ও হামলারও ভয় দেখানো হচ্ছে। কোর্টে মামলা রুজু হয়েছে এ খবরে দ্বিতীয় পক্ষ অধিক ক্ষুদ্ধ হয়ে বাদীপক্ষকে জায়গা থেকে উচ্ছেদ করতে নতুন কৌশলে ব্যস্ত রয়েছে। প্রাপ্ত সুত্র জানায়, বারবাকিয়া ইউনিয়নের নাজিরপাড়ায় ১৮ শতক জায়গা নিয়ে স্থানীয় মৃত মুহাম্মদ জলিলের পুত্র ফজর আহমদ গং ও প্রতিবেশী মৃত মৌলভী আবদুল জলিলের পুত্র ফরিদুল হক গংদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। ফজর আহমদ গং অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত কক্সবাজারে এম আর মামলা রুজু করে। যার নং ৮৭১/২০। এ ছাড়া ফজর আহমদ গং জমির জবর দখল ঠেকাতে পেকুয়া থানায় লিখিত অভিযোগ প্রেরন করে। অভিযোগ সুত্র জানায়, গত ৭ অক্টোবর সকাল ১০ টার দিকে মৌলভী আবদুল জলিলের পুত্র ফরিদুল হক, তার ভাই রফিকুল হক, মৃত মাহামুদুল হকের পুত্র এমরান, মোসাদ্দেকের পুত্র মিনারসহ ১০/১২ জনের একটি চক্র বিরোধীয় জমিতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালায়। তারা উত্তেজিত অবস্থায় লাঠিসোটা, দা, কিরিচ ও লোহার রডসহ অবৈধ জনবল সৃষ্টি করে ফজর আহমদ গংদের বসতভিটায় হানা দেয়। এ সময় বসতবাড়ি ভাংচুর ও ভিটায় সৃজিত বিভিন্ন প্রজাতির গাছ গাছালি সাবাড় করে। এমনকি একই দিন গভীর রাতে ওই চক্র ফের ফজর আহমদ গংদের বসতবাড়িতে হানা দেয়। এ সময় পরিবারের সদস্যদের ভীতি ও আতংক ছড়িয়ে বহিরাগত লোকজনসহ ফরিদুল হক গং ভাংচুরসহ লুটপাট চালায়। এ সময় হামলাকারীরা বসতবাড়ি থেকে ৩ টি মুঠোফোন, ইলেকট্রনিক্স টর্চসহ অন্যান্য দ্রব্যাদি নিয়ে সটকে পড়ে। এর প্রতিকার পেতে ফজর আহমদ গং পেকুয়া থানায় লিখিত অভিযোগ প্রেরণ করে। পেকুয়া থানার এস,আই আশরাফ ওই স্থান পরিদর্শন করেন। নাজিমের স্ত্রী শারমিন আক্তার জানান, তারা এসে মহিলাদের সাথে ধস্তাধস্তি করে। কাপড় চোপড় ধরে আমাদেরকে হেনস্থা ও টানা হ্যাঁচড়া করে। ফজর আহমদের মেয়ে রোকসানা পারভীন জানান, তারা রাতে এসে আমাদের বাড়িতে লুটপাট চালায়। আমাকে ধারালো ছুরা তাক করে প্রাণনাশ চেষ্টা চালায়। প্রাণে বাঁচতে আমরা চিৎকার করছিলাম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category