• সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
এড. আমজাদ হোসেন কখনও অর্থবিত্তের জন্য রাজনীতি করেননি-এড.ফরিদুল ইসলাম এড.আমজাদ হোসেনের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী সফলের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন পূর্ব বড় ভেওলা মাহমুদিয়া হেফজখানা ও এতিমখানায় সাহায্যের আবেদন চকরিয়ায় দখলবাজরা কেটে নিল সামাজিক বনায়নের শতাধিক গাছ মানবিক সাহায্যের আবেদন জাফর আলম এমপি ও জাহেদুল ইসলাম লিটু কে বিশাল সংবর্ধনা আধুনিক ও বাসযোগ্য চকরিয়া পৌরসভা রূপান্তরে কাজ করবো-মেয়র প্রার্থী এড. ফয়সাল চকরিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতিকে নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ চকরিয়া বিএমচর ইউপি কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুর, চেয়ারম্যানসহ আহত ৪ চকরিয়া কোনাখালীতে পৈতৃক ভিটা জবর দখলে নিতে সন্ত্রাসী হামলা

পেকুয়ায় দোকান কর্মচারীকে অপহরন চেষ্টা, জনতার হাতে আটক-১

পেকুয়া প্রতিনিধি / ৯৪ সময় দেখুন
আপডেট : সোমবার, ৯ নভেম্বর, ২০২০

পেকুয়ায় এক দোকান কর্মচারীকে অপহরন চেষ্টা চালানো হয়েছে। এ সময় স্থানীয় জনতা অপহরন চক্রের তিন সদস্যকে গনধোলাই দিয়েছে। জয়নাল আবেদীন (৫০) নামের একজনকে আটক করতে পারলেও ওই চক্রের অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। সোমবার (৯ নভেম্বর) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বামুলার পাড়া ষ্টেশনে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় লোকজন আহত জাফর আলমকে (৫০) মুমর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। জাফর আলম প্রকাশ জাফর মাঝি চড়িপাড়া গ্রামের আছত আলীর ছেলে। পেকুয়া থানা পুলিশ দুই দফা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য আজম উদ্দিন পেকুয়া থানার ওসি ও ইউপির চেয়ারম্যানকে মুঠোফোনে কথা বলে আটককৃত জয়নাল আবেদীনকে গ্রাম পুলিশকে সোপর্দ করে। অভিযোগ উঠেছে জয়নালকে রাজাখালী সবুজ বাজারে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। জয়নাল আবেদীন ওই ইউপির বদিউদ্দিন পাড়া গ্রামের এরশাদ আলীর ছেলে। জাফর আলমের স্ত্রী হাছিনা বেগম জানায়, সুদের টাকা না দেয়ায় আমার স্বামীকে জয়নালের নেতৃত্বে অস্ত্রধারীরা অপহরন চেষ্টা চালায়। তাকে নিষ্টুরভাবে পেঠানো হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সকি আলম,বদিউল আলম, জয়নাল আবেদীন, নাজেম উদ্দিন জানায়, জাফর আলম বামুলার পাড়া ষ্টেশনে গোলাম শরীফের চায়ের দোকানের কর্মচারী। দুপুরে বদিউদ্দিন পাড়ার জয়নাল আবেদীন, মনিরুজ্জামান, সুজাঙ্গীর, বাবুল, এনাম, কায়সার, রেজাউল করিম, রায়হান দুইটি অটোরিক্সা যোগে গোলাম শরীফের দোকানে হানা দেয়। এ সময় জাফর মাঝিকে মারধর করে টানা হ্যাঁছড়া করে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। বামুলার পাড়া ডাবল ব্রীজ সংলগ্ন স্থানে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা মহানবী (সাঃ)কে অবমাননা করার প্রতিবাদে একটি বিক্ষোভ মিছিলের লোকজনের তোপের মুখে পড়ে। এ সময় মিছিলের লোকজন অপহরন চক্রের তিন সদস্যকে গনধোলাই দেয়। জয়নাল আবেদীনকে আটক করতে পারলেও অন্যরা পালিয়ে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী দোকানের অপর কর্মচারী আমির হোসেন জানায়, দোকানে এসে তারা জাফর মাঝিকে হাতুড়ী নির্দয় পিটিয়ে অটোরিক্সায় তুলে ফেলে। তিনি প্রানে বাচতে কাকুতি মিনতি করেছে। ক্যাশ থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে। আহত জাফর আলম জানায়, তিন বছর আগে একটি খালি ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর দিয়ে জয়নালের কাছ থেকে ৫০হাজার টাকা ধার নিই। কিন্তু পরবর্তীতে ষ্ট্যাম্পে ৭লক্ষ টাকা লিখে নেয় সে।আমি অন্তত দুই লাখ টাকা সুদ বহন করি। এরপরেও সুদের টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে আসছে। আমাকে তারা অপহরন করার চেষ্টা করে। আমাকে নিশ্চিত মেরে ফেলা হত। ইউপি সদস্য আজম উদ্দিন জানায়, জাফর মাঝিকে প্রকাশ্যে অপহরন চেষ্টা চালানো হয়েছে। একজনকে আটক করা হয়েছে। ওসি, চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলে পরিষদের দফাদারকে আটক জয়নালকে সোপর্দ করেছি। জয়নাল একজন সুদি কারবারী। সুদের টাকা দিতে না পেরে অনেক পরিবার ভিটেবাড়ী দিয়ে এলাকা ছাড়া হয়েছে। খালি ষ্ট্যাম্প নিয়ে টাকা ধার দিয়ে পরবর্তীতে মোটাংকের টাকা লিখে শত শত পরিবারকে নিঃস্ব করেছে। তাকে সবাই সুদি জয়নাল নামে চিনে। তার ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পায়না। ইউপির চেয়ারম্যান ছৈয়দনুর জানায়,সুদের টাকা নিয়ে মারপিট হয়েছে শুনেছি। ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পেকুয়া থানার ওসি সাইফুর রহমান মজুমদার জানায়, পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে পাঠাতে বলেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। স্থানীয়রা জানায়, অপহরনকারীরা অস্ত্রধারী। ভয়ংকর লোক। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতি, দস্যুতা, হত্যা, অপহরন, পুলিশ এসল্ট, মানবপাচার, চাঁদাবাজি, অস্ত্র আইনে মামলা,মারপিট,চুরি মামলা রয়েছে। প্রত্যেকের বিরুদ্ধে অন্তত ১২/১৫টি মামলা রয়েছে। এসব মামলায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা রয়েছে। তারা প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করলেও পুলিশ তাদের ধরেনা। এদিকে অপহরন চেষ্টা ও অপহরনকারীকে ছেড়ে দেয়ার প্রতিবাদে বিকেলে বামুলার পাড়া ষ্টেশনে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। মিছিলে শত শত লোকজন জড়ো হয়েছে। এদিকে সৃষ্ট ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রামবাসির মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। অস্ত্রধারীরা জাফর আলমের বাড়িতে ফের হানা দিয়েছে। তারা আতংক ছড়াতে অস্ত্রের মহড়া দিচ্ছে। তাদের ভয়ে জাফর আলমের পরিবার বাড়ি ছাড়া হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category